ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি, সকাল ৬:৪৪
বাংলা বাংলা English English

মঙ্গলবার, ১৮ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বিদেশি শিক্ষার্থীদের প্রবেশের অনুমতি দেওয়ার চিন্তা করছে জাপান


বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন ছড়িয়ে পড়ার পরই নতুনভাবে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে জাপান। বিশেষ করে বিদেশি নাগরিকদের প্রবেশের ক্ষেত্রে। দেশটির এমন সিদ্ধান্তের ফলে তীব্র সমস্যায় পড়েন বিদেশি শিক্ষার্থীরা। ব্যাহত হচ্ছে তাদের শিক্ষা সংশ্লিষ্ট কার্যক্রম।

এমন পরিস্থিতিতে নির্দিষ্ট নিয়মের ভিত্তিতে সীমিত পরিসরে জাপান সরকার বিদেশি শিক্ষার্থীদের প্রবেশে অনুমোদন দেওয়ার চিন্তা-ভাবনা করছে। শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) জাপানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম নিক্কেই এশিয়ার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

জানা গেছে, যারা দেশটিতে সরকারি স্কলারশিপ পেয়েছে তারাই আপাতত প্রবেশের অনুমতি পেতে পারেন। কারণ তারা জাপানের ক্রেডিট অর্জন না করলে স্নাতক বা শিক্ষায় অগ্রগতি করতে পারবে না। এ নিয়ম অনুযায়ী মাত্র কয়েকশ শিক্ষার্থী সুযোগ পেতে পারেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, শত শত শিক্ষার্থী জাপানে প্রবেশের অপেক্ষায় রয়েছে। তবে সম্পূর্ণভাবে সীমান্ত খুলে দিতে আরও অনেক সময় লাগবে। করোনা মোকাবিলায় জাপান অব্যাহতভাবে সীমান্তে বিধিনিষেধ জারি রেখেছে। এভাবে চলতে থাকলে দেশটি ভবিষতে মেধা সংকটে পড়তে পারে।

দেশটির শিক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, ২০২০ সালের মে মাস পর্যন্ত জাপানের প্রায় ২ লাখ ৮০ হাজার বিদেশি শিক্ষার্থীর মধ্যে মাত্র ৮ হাজার ৭৬১ জন সরকারি বৃত্তি পেয়েছেন। অন্যদিকে টোকিও বেসরকারিভাবে অর্থায়ন করা শিক্ষার্থীদের সুযোগের বিষয়ে আলোচনা চালিয়ে যাবে বলেও জানা গেছে।

তবে যেসব শিক্ষার্থীরা দেশটিতে প্রবেশ করবে তাদের অবশ্যই বিভিন্ন বিধিনিষেধ মানতে হতে পারে। বিমানবন্দর এলাকায় কোয়ারেন্টাইনে থাকার প্রয়োজন পড়তে পারে শিক্ষার্থীদের। ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি কমাতে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

সরকারি স্কলারশিপ পাওয়া শিক্ষার্থীসহ জাপান গত বছরের নভেম্বরের শেষের দিক থেকে প্রায় সব বিদেশি নাগরিকেরও ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করে। যদিও আগের বিধিনিষেধগুলোতে এসব শিক্ষার্থীরা আওতাভুক্ত ছিল না।