ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি, সকাল ৭:০৫
বাংলা বাংলা English English

মঙ্গলবার, ১৮ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

নবাবগঞ্জে ঐতিহ্যবাহী ঘোড়দৌড় অনুষ্ঠিত


পৌষের শেষে শীত যখন জেঁকে বসেছে, ঠিক তখনই গ্রামবাংলার ঐতিহ্য টিকিয়ে রাখতেই দিনব্যাপী ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতা। আর এই প্রতিযোগিতার আনন্দ উপভোগ করতে জড়ো হয় নারী-পুরুষ শিশু-কিশোর থেকে শুরু করে সব শ্রেণি পেশার মানুষ। হাজার হাজার দর্শকের উপস্থিতিতে যেন মেলায় পরিণত হয়েছে এই খেলা প্রাঙ্গণ।

লাল-নীল পতাকায় বর্ণিল সাজে সাজানো হয় খেলার মাঠ। ঘোড়ার খুরের শব্দে আর ধুলো উড়িয়ে নিজেদের শ্রেষ্ঠ হওয়ার কৌশল দেখানোর প্রতিযোগীরা।

বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) দিনাজপুরের হিলির পার্শ্ববর্তী নবাবগঞ্জ উপজেলার শালকুরিয়া পচাকরঞ্জী বিদ্যালয় মাঠে স্থানীয় আওয়ামী যুবলীগের আয়োজনে দিনব্যাপী হাজারো দর্শকের উপস্থিতিতে এই ঐতিহ্যবাহী ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

এই প্রতিযোগিতায় দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা ২৩টি ঘোড়া ৩ গ্রুপে ৩টি করে ভাগ হয়ে মাঠে অংশগ্রহণ করে দৌড় প্রতিযোগিতায়। মাঠে প্রতিযোগীদের টানটান উত্তেজনা আর ঘোড়ার পায়ের টগবগ শব্দে এগিয়ে যায় প্রতিযোগিতারা। গ্রামবাংলার এই ঘোড়দৌড় খেলা দেখতে এসে খুশি স্থানীয়রা।

ঘোড় প্রতিযোগীরা বলেন, শুধু পুরষ্কার পাবার আশায় নয়, পুরনো ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে এবং মানুষকে বিনোদন দিতেই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন তারা।

শালকুরিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান বলেন, নতুন বছর উপলক্ষে ও গ্রামীণ ঐতিহ্য ধরে রাখার পাশাপাশি জনগণকে নির্মল আনন্দের জন্য এই আয়োজন করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আমরা পরবর্তীতে মানুষকে আনন্দ দেওয়ার জন্য বিভিন্ন জায়গা থেকে এমনকি ভারত থেকেও ঘোড়া অংশগ্রহণ করার আশা প্রকাশ করেন।

খেলা আয়োজক মমিনুল হক বলেন, আমরা এই ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতা প্রত্যেক বছরে করি থাকি। সেই তুলনায় এবারও আজকে আয়োজন করা হয়েছে।

খেলায় তিনটি গ্রুপের মধ্যে প্রথম গ্রুপে প্রথম হয় রাশেদুল ইসলাম ও দ্বিতীয় নান্টু। দ্বিতীয় গ্রুপে প্রথম হয় জাকারিয়া ও দ্বিতীয় হয় সৌরভ। তৃতীয় গ্রুপে প্রথম হয় মাহাবুল ও দ্বিতীয় হয় খট্টু।

এদিকে, খেলাকে কেন্দ্র করে দোকানিরা তাদের পসরা সাজিয়ে বসেছে। জমে উঠেছে বিভিন্ন মিষ্টি আর পিঠাপুলির মেলা।