ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩০শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৪শে রবিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি, রাত ২:৫৮
বাংলা বাংলা English English
শিরোনাম:
বছর বছর বেড়েই চলেছে দুর্ঘটনায় সড়কে প্রাণহানি উদ্বোধনের অপেক্ষায় দেশের প্রথম ভ্রাম্যমাণ জাদুঘর রাজধানীর রামপুরায় ঘাতক বাসচালক আটক, ৮ বাসে আগুন রামপুরায় অনাবিল পরিবহনের ধাক্কায় শিক্ষার্থীর মৃত্যু, কয়েকটি বাসে অগ্নিসংযোগ ‘বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো গবেষণায় প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিচ্ছে না’ ওমিক্রন আতঙ্ক: এইচএসসি পরীক্ষা হবে কি না জানালেন শিক্ষামন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর সমর দর্শন ও সশস্ত্র বাহিনী সম্পর্কে জানতে পড়তে পারেন যে বই ধর্ষণ ও হত্যা মামলার আসামি শুক্কুরের মৃত্যুদণ্ডের রায় স্থগিত হেফাজত মহাসচিব মাওলানা নুরুল ইসলাম আর নেই ভয়ংকর ওমিক্রন নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ১৫ নির্দেশনা

বছর বছর বেড়েই চলেছে দুর্ঘটনায় সড়কে প্রাণহানি উদ্বোধনের অপেক্ষায় দেশের প্রথম ভ্রাম্যমাণ জাদুঘর রাজধানীর রামপুরায় ঘাতক বাসচালক আটক, ৮ বাসে আগুন রামপুরায় অনাবিল পরিবহনের ধাক্কায় শিক্ষার্থীর মৃত্যু, কয়েকটি বাসে অগ্নিসংযোগ ‘বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো গবেষণায় প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিচ্ছে না’ ওমিক্রন আতঙ্ক: এইচএসসি পরীক্ষা হবে কি না জানালেন শিক্ষামন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর সমর দর্শন ও সশস্ত্র বাহিনী সম্পর্কে জানতে পড়তে পারেন যে বই ধর্ষণ ও হত্যা মামলার আসামি শুক্কুরের মৃত্যুদণ্ডের রায় স্থগিত হেফাজত মহাসচিব মাওলানা নুরুল ইসলাম আর নেই ভয়ংকর ওমিক্রন নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ১৫ নির্দেশনা
মঙ্গলবার, ৩০শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সড়ক দুর্ঘটনা রোধে কার্যকরি পদক্ষেপ প্রয়োজন


প্রতিবছর জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস পালিত হয়। এবারও দিবসটি পালিত হলো গত ২২ অক্টোবর। নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দেশে দিবসটি পালন করা হয়। এবারের প্রতিপাদ্য ছিল- ‘গতিসীমা মেনে চলি, সড়ক দুর্ঘটনা রোধ করি।’ কিন্তু আমরা গতিসীমা মানি না। তাই এত আলোচনা ও আন্দোলনের পরও দুর্ঘটনা রোধ করা যাচ্ছে না। দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রতিদিনই অকালে ঝরে যাচ্ছে একের পর এক মূল্যবান প্রাণ। সড়ক দুর্ঘটনায় আর কত স্বপ্ন ও আশার মৃত্যু হবে?
সম্প্রতি এআরআইয়ের গবেষণায় দেখা গেছে- ৯০ শতাংশ সড়ক দুর্ঘটনার জন্য দায়ী যানবাহনের অতিরিক্ত গতি ও চালকের বেপরোয়া মনোভাব। মহাসড়কে অপরিকল্পিত গতিরোধক (স্পিডব্রেকার) দুর্ঘটনার জন্য অনেকাংশে দায়ী। এ ছাড়া ফিটনেসবিহীন যানবাহন, সড়কের পাশে হাটবাজার বসা, চালকের পর্যাপ্ত বিশ্রামের অভাব ইত্যাদি কারণেও দুর্ঘটনা ঘটছে। প্রশ্ন হচ্ছে, মহাসড়কে যান চলাচলের সর্বোচ্চ গতি বেঁধে দিয়ে এবং গতি পরিমাপক যন্ত্র ব্যবহার করে চালকদের ওই নির্দিষ্ট গতি মেনে চলতে বাধ্য করা হচ্ছে না কেন।
সড়ক দুর্ঘটনা রোধসহ পরিবহন খাতের শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনার দায়িত্ব বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ)। যানবাহন রেজিস্ট্রেশন, ফিটনেস, ড্রাইভিং লাইসেন্স, পরিবহন খাতের শৃঙ্খলাসহ অন্তত ১৯ ধরনের কাজ করে বিআরটিএ। সংস্থাটি সড়ক দুর্ঘটনা রোধে কতটুকু দায়িত্ব পালন করছে? তারা যদি চালকদের দক্ষতার বিষয়টি নিশ্চিত করে লাইসেন্স প্রদান করতেন, তা হলে দুর্ঘটনা অনেকাংশে কমে যেত। সড়ক দুর্ঘটনার অন্যতম কারণ হলো অতিরিক্ত গতি। চালকের অবহেলা ও প্রশিক্ষণের অভাব তো আছেই। নিয়ম-কানুন না জেনে কেবল স্টিয়ারিংয়ে বসতে পেরেই হয়ে যান চালক। রাস্তা নির্মাণের ত্রুটি, রোড সাইন সর্বত্র না থাকাসহ নানা কারণ আছে সড়ক দুর্ঘটনার। দুর্ঘটনা প্রতিরোধে সবার আগে প্রয়োজন আইনের কঠোর প্রয়োগ। আর তা না করতে পারলে এ পরিস্থিতি দিন দিন আরও ভয়াবহ হবে। দুর্ঘটনা প্রতিরোধের উপায় নিয়েই ভাবতে হবে সরকার ও সংশ্লিষ্ট বিভাগকে। সামগ্রিকভাবে দুর্ঘটনা রোধে সংশ্লিষ্টরা যুগোপযোগী পরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়নে দৃঢ় এবং আন্তরিক হবেন। আমরা চাই, সব কারণ বিশ্লেষণ করে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হোক। সরকার এ ক্ষেত্রে কার্যকরি পদক্ষেপ নেবে এটাই প্রত্যাশা।