ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি, সকাল ৭:৩৩
বাংলা বাংলা English English

মঙ্গলবার, ১৮ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

করোনা নিয়ে মাউশির নতুন নির্দেশনা


মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ছে। এমন পরিস্থিতিতে শিক্ষক, শিক্ষার্থীসহ সংশ্লিষ্টদের সুরক্ষিত রাখতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে নিয়মিত করোনা সংক্রান্ত তথ্য পাঠাতে নির্দেশনা দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর (মাউশি)।

মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি) মাউশির মহাপরিচালক (অতিরিক্ত দায়িত্বে) মো. শাহেদুল খবির চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, করোনা আবারও বৃদ্ধি পাওয়ায় মনিটরিং চেকলিস্টের তথ্যগুলো গুগল ফর্মের মাধ্যমে পত্র জারির পর থেকে প্রতিদিন বিকেল ৫টার মধ্যে পাঠাতে হবে। নির্ধারিত লিংকে প্রবেশ করে গুগল ফরমে তথ্য দিতে হবে।

মাউশি থেকে জারি করা গাইডলাইন, নির্দেশনাপত্র এবং করোনা সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির সুপারিশসমূহের আলোকে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নিয়মিতভাবে সুরক্ষিত রাখার জন্য দৈনিক ভিত্তিতে মনিটরিং করার লক্ষ্যে একটি মনিটরিং চেকলিষ্ট প্রস্তুত করা হয়েছিল।

এদিকে, গত সোমবার (১০ জানুয়ারি) সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি জানিয়েছেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এই মুহূর্তে বন্ধ হবে না। তবে যাদের ঝুঁকি বেশি তাদেরকে বাসায় বসে অনলাইনে ক্লাস করার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

তিনি বলেন, যখন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলেছিলাম তার থেকে আমরা এখন ভালো অবস্থায় আছি। তখন কোনো টিকা ছিল না, এখন প্রায় সবাই টিকার আওতায় চলে এসেছে। এখন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করা হবে না। স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়টি জোরদার করা হবে। সীমিত পরিসরেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চলবে। স্থানীয় প্রশাসনের মাধ্যমে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে স্বাস্থ্যবিধি মানার কাজ আরও কঠোরভাবে মনিটরিং করা হবে।

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, সাতদিন পর আবার বসব। পরিস্থিতি পর্যালোচনা করা হবে। যদি কখনও মনে হয় বন্ধ করতে হবে, তখন বন্ধ করে দেব।

সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ৯৫ ভাগই ইতোমধ্যে টিকার আওতায় চলে এসেছে বলেও জানান ডা. দীপু মনি।