ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি, সকাল ৬:৪৩
বাংলা বাংলা English English

মঙ্গলবার, ১৮ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

আপেলের বক্সে মিলল ৫ কোটি টাকার সিগারেট


আরব আমিরাত থেকে আপেল আমদানির ঘোষণা দিয়ে আনা ২২ লাখ সিগারেটের একটি চালান জব্দ করেছে চট্টগ্রাম কাস্টমস কর্তৃপক্ষ।

বুধবার (২২ ডিসেম্বর) চট্টগ্রাম বন্দরে পণ্যের চালানটির কায়িক পরীক্ষার পর বৃহস্পতিবার (২৩ ডিসেম্বর) এ তথ্য জানিয়েছে চট্টগ্রাম কাস্টমসের অডিট, ইনভেস্টিগেশন অ্যান্ড রিচার্জ (এআইআর) শাখা।

চালানটি খালাস হলে ৫ কোটি ৩০ লাখ টাকা রাজস্ব ফাঁকি দেওয়া হতো বলে জানিয়েছেন কাস্টমস কর্মকর্তারা।

চট্টগ্রাম কাস্টমসের এআইআর শাখার উপ-কমিশনার মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন রিজভী জানিয়েছেন, নগরীর স্টেশন রোডের মারহাবা ফ্রেশ ফ্রুটস নামের একটি প্রতিষ্ঠান আরব আমিরাত থেকে আপেল আমদানির ঘোষণা দিয়েছিল। চালানটি খালাসের জন্য গত ২০ ডিসেম্বর প্রতিষ্ঠানটির নিযুক্ত সিঅ্যান্ডএফ প্রতিনিধি জিমি এন্টারপ্রাইজ কাস্টমসে বিল অব এন্ট্রি দাখিল করে। কিন্তু চালানটিতে ঘোষণাবর্হিভূত পণ্য থাকার খবর পেয়ে সেটির খালাস স্থগিত করে দেয় কাস্টমসের এআইআর শাখা।

বুধবার শতভাগ কায়িক পরীক্ষার পর দেখা যায়, যে কনটেইনারে করে চালানটি এসেছে, সেখানে ১ হাজার ১২০টি কার্টন আছে। ৭৫৪টি ফ্রেশ আপেলের কার্টনে আপেলের নিচে লুকানো অবস্থায় বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ২২ লাখ ১৯ হাজার সিগারেট পাওয়া যায়। এর মধ্যে ৬ লাখ ৯১ হাজার ৪৮০ শলাকা মন্ড, ১৪ লাখ ৮ হাজার ৭২০ শলাকা ইজি এবং ১ লাখ ১৮ হাজার ৮০০ শলাকা ওরিস ব্র্যান্ডের সিগারেট পাওয়া যায়। বাকি ৩৬৬ কার্টনে ১৫ হাজার ৯৮ কেজি ফ্রেশ আপেল এবং ২ হাজার ৪৮৮ কেজি জিপি শিট পাওয়া যায়।

কাস্টমসের পক্ষ থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, জব্দ সিগারেটের আনুমানিক মূল্য ১ কোটি ৩৭ লাখ টাকা। ঘোষণা দিয়ে এসব সিগারেট আমদানি করা হলে ৫ কোটি ৩০ লাখ টাকা শুল্ক পরিশোধ করতে হতো। এই রাজস্ব ফাঁকির অপচেষ্টা কাস্টমস কর্তৃপক্ষ প্রতিরোধ করতে সক্ষম হয়েছে।