ঢাকা, শুক্রবার, ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৬ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি, দুপুর ১২:৩১
বাংলা বাংলা English English

রোনালদোর যে বক্তব্যে ম্যানইউতে নীরবতা

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে পাড়ি জমানোর পর দারুণ প্রভাবিত হয়েছে ইংল্যান্ডের ক্লাবটি। আর্থিক বিষয়সহ খেলোয়াড়দের দৃষ্টিভঙ্গিতেও নাকি পরিবর্তন আসছে। পর্তুগিজ ফুটবলারের বক্তব্যও নাকি খুব শক্তিশালী, পুরনো ক্লাবে এসে কথার বাণে নীরবতা নামিয়ে এনেছিলেন সবার মধ্যে। বলেছেন জয়ের কথা, জেতানোর কথা।

রোনালদোর প্রেরণাদায়ী বক্তব্য শুনে যেমন নিরবতার শীলত ছায়া বয়ে গেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে, তেমনি সতীর্থদের কাছ থেকে কড়তালিও পেয়েছেন তিনি। ইংলিশ সংবাদ মাধ্যম দ্য সানের মতে, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে এসে রোনালদো সতীর্থদের লক্ষ্য করে বলেন, ‘এখানে আমি জিততে এসেছি। জয় আমাদের আনন্দ দেয়। আমি সুখী হতে চাই, তোমরা হতে চাও? সকলেই অসাধারণ খেলোয়াড়, তোমাদের প্রতি আমার বিশ্বাস আছে। অন্যথায় আমি এখানে আসতাম না। আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করলে সমর্থকরা আমাদের সমর্থন দেবে।’

পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী তারকা যোগ করেন, ‘আমি শুধু জয়ের মানসিকতা তৈরি করতে চাই। তখন আমি সবসর নিলেও এই মানসিকতা থাকবে। এবং এই গ্রুপের সদস্যরা ফুটবলে আধিপত্য বিস্তার করবে, যেমনটি আমরা অতীতে করে এসেছি। এখনও আমি সেরাটা দেব, কিন্তু সে জন্য তোমাদের সাহায্যও দরকার। তোমরা কি লড়তে প্রস্তুত? মাঠে সবকিছু উজার করে দিতে চাও?

২৭ আগস্ট ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড রোনালদোকে দলের নেওয়ার ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দেয়। ১২.৮৫ মিলিয়ন পাউন্ডে রোনালদো তার পুরনো ক্লাবে এসেছেন। তার আগমনের পর ম্যানচেস্টার ইউনাটেডের অনেক কিছুতে দারুণ প্রভাব পড়েছে। জার্সি বিক্রি যেমন বেড়েছে তেমনি তাদের শেয়ারের দামও বহুগুণে বৃদ্ধি পেয়েছে। এখন শুধু শিরোপার দিকে মনযোগ দিলেও ষোলকলা পূর্ণ হয় ইংল্যান্ডের ক্লাবটির। রোনালদোও সেটা করতে চান। এই ক্লাবটিকে যে অনেক ভালবাসেন তিনি।

সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ তারকা বলেন, ‘আমি এখানে মূলত দুটি কারণে ফিরে এসেছি। এক, এটাকে আমি অনেক ভালোবাসি। দুই, আমি এই ক্লাবের জেতার মানসিকতাকে পছন্দ করি। বিশ্বাস করো, এখানকার চিয়ারলিডার হিসেবে আমি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে আসিনি, এখন তোমরা যদি জিততে চাও তাহলে হৃদয়ের অন্তঃস্থল থেকে ক্লাবকে ভালবাসতে হবে। এই ক্লাবের জন্য তোমার খাওয়া-দাওয়া করতে হবে, ঘুমাতে হবে, লড়াই করতে হবে। তুমি খেলো বা না খেলো, সব সময় ক্লাবকে সমর্থন দিতে হবে।’