ঢাকা, শুক্রবার, ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৬ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি, দুপুর ১২:৪৯
বাংলা বাংলা English English

সোশ্যাল মিডিয়া থাকবে সার্বক্ষণিক নজরদারিতে

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও ওয়েবসাইটে ‘আপত্তিকর’ কনটেন্ট সরানো ও সার্বক্ষণিক নজরদারিতে বিশেষ সেল গঠন করেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। ফেসবুকসহ অন্যান্য সামাজিক মাধ্যম ও ইন্টারনেট ২৪ ঘণ্টা নজরদারিতে রাখা হবে বলে জানিয়েছেন নিয়ন্ত্রক সংস্থাটির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার। এতে ভাইরাল হওয়া নেতিবাচক কোনো লিংক বা কনটেন্ট দ্রুত অপসরণ করা যাবে। নবগঠিত ‘সাইবার সিকিউরিটি সেল’-এর মাধ্যমে ওয়েবসাইট এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘সরকার ও রাষ্ট্রবিরোধী’সহ বিভিন্ন রকম ‘আপত্তিকর’ কনটেন্ট সব সময় নজরদারিতে রাখতে চায় টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

পাশাপাশি সামাজিক, রাজনৈতিক, পর্নোগ্রাফি, সাংস্কৃতিক কিংবা ধর্মীয় বিষয়ে উসকানিমূলক ও উগ্রবাদী কনটেন্টও সার্বক্ষণিক নজর রাখতে কাজ করবে এ সেল। এর আগে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, গোয়েন্দা সংস্থা ও বিভিন্ন সরকারি সংস্থা নিয়মিতভাবে ‘আপত্তিকর’ কনটেন্ট অপসারণে অনুরোধ জানালে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নিত বিটিআরসি। এখন থেকে এ সেলের মাধ্যমে স্বউদ্যোগে পদক্ষেপ নেওয়া হবে। প্রাথমিকভাবে কাজ শুরুও হয়েছে বলে জানিয়েছেন কমিশনের চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার।

তিনি বলেন, ‘সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ সাইবার জগতের কনটেন্ট মনিটরিং ও ব্যবস্থাপনায় ‘সাইবার সিকিউরিটি সেল’ গঠন করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে আমরা কাজ শুরু করেছি। খুব শিগগির ২৪ ঘণ্টা এ সেল কাজ শুরু করবে।’

সেলের পরিচালনায় বিশেষ কোনো প্রযুক্তি প্রয়োজন হলে আগামীতে আমরা এ উদ্যোগ নেব, তবে এসব প্রযুক্তি বেশি দামের হবে না। খুব সহজেই পুরো কাজ আমরা শুরু করতে পারব বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গত এক বছরে ১৮ হাজার ৮৩৬টি ‘আপত্তিকর’ ফেসবুক লিংক বন্ধ করার অনুরোধ জানায় বাংলাদেশ সরকার। এর মধ্যে চার হাজার ৮৮৮টি লিংক বন্ধ করা হয়েছে। ৪৩১টি ইউটিউব লিংক বন্ধ করার অনুরোধে ৬২টি ক্ষেত্রে ইউটিউব কর্তৃপক্ষ সাড়া দিয়েছে।