ঢাকা, শুক্রবার, ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৬ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি, সকাল ১১:১০
বাংলা বাংলা English English

পরিকল্পনা ছিল ময়মনসিংহ নগরীর একটি ব্যাংকে ডাকাতির, গ্রেপ্তার ৪

পরিকল্পনা ছিল ময়মনসিংহ নগরীর একটি ব্যাংকে ডাকাতির। সেই মতো ডাকাতি করতে জামালপুর থেকে গত বুধবার (১ সেপ্টেম্বর) ব্রহ্মপুত্র নদ দিয়ে ইঞ্জিনচালিত নৌকায় ময়মনসিংহের উদ্দেশে রওনা দেয় ডাকাতরা।

শনিবার (০৪ সেপ্টেম্বর) ভোরে নগরীর ঢোলাদিয়া এলাকায় পৌঁছালে র‌্যাব সদস্যরা তাদের ঘিরে ফেলে। ডাকাতরা গুলি ছুঁড়তে শুরু করলে র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে ৪ জনকে আটক করা হয়। র‌্যাবের জালে আটকের পর ভেস্তে যায় পরিকল্পনা। উদ্ধার করা হয় অস্ত্র, গুলি, ককটেল ও একাধিক দেশীয় অস্ত্র।

 

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, ভোরে ফজরের নামাজ পড়তে এসে দেখি এলাকায় র‌্যাবের অনেক গাড়ি। তাদের কাছ থেকে জানতে পারলাম, এখানে তাদের বিরুদ্ধে অভিযান চলছে। র‌্যাব আমাদের বলল, ঘরে চলে যেতে। এর কিছুক্ষণ পরই দেখলাম তারা ৪ জনকে আটক করে নিয়ে যাচ্ছে। তাদের কাউকেই চিনি না। তারা এ এলাকার না।

পরে ব্রিফিংয়ে র‌্যাবের সংবাদমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন জানান, জামালপুরের মাদারগঞ্জের একটি আস্তানায় হয় পরিকল্পনা বাস্তবায়নের বিশেষ প্রশিক্ষণ। তারা জঙ্গি। ডাকাতির পর লুট করা টাকা ময়মনসিংহে অপর একটি দলের কাছে হস্তান্তরের পরিকল্পনা ছিল। এই অঞ্চলের জেএমবির এক শীর্ষ নেতা ছিল মাস্টারমাইন্ড।

কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, গ্রেপ্তারকৃত ৪ সদস্য বিভিন্নভাবে জঙ্গি অপারেশনে অংশগ্রহণ করত। তারা সাংগঠনিক সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে এই ডাকাতির জন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত হন বলে জানান। এই বিষয়ে জামালপুরে একটি গোপন আস্তানায় সম্প্রতি তাদের বিশেষ প্রশিক্ষণ ও মিটিং পরিচালনা করা হয়।

 

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- ময়মনসিংহের জুলহাস ও আলাল, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার রোবায়েদ এবং রংপুরের খালিদ। এদের বিরুদ্ধে জঙ্গি সংশ্লিষ্টতার একাধিক মামলা রয়েছে।