ঢাকা, শুক্রবার, ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৬ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি, দুপুর ১২:১০
বাংলা বাংলা English English

বেজোস, বাফেট ও এলন মাস্কের কর ফাঁকির তথ্য ফাঁস

অনলাইন ডেস্ক::

মার্কিন ধনকুবেরদের কর ফাঁকি নিয়ে এবার বিস্ময়কর তথ্য দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম প্রোপাবলিকা। জেফ বেজোস, এলন মাস্ক ও ওয়ারেন বাফেটসহ বিশ্বের শীর্ষ ধনীদের আয়কর বিবরণী দেখারও দাবি করেছে এটি।

ওয়েবসাইটটি বলছে, ২০০৭ ও ২০১১ সালে কোনো আয়কর দেননি আমাজনের জেফ বেজোস। আর টেসলার প্রধান নির্বাহী এলন মাস্কও কোনো কর দেননি ২০১৮ সালে।-খবর বিবিসির

তবে এই তথ্য ফাঁসের ঘটনাকে অবৈধ বলে আখ্যায়িত করেছেন হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র। মার্কিন কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা এফবিআই ও কর কর্তৃপক্ষ এ ঘটনায় তদন্ত করছে।

প্রোপাবলিকা বলছে, ধনকুবেরদের আয়কর নিয়ে অভ্যন্তরীণ রাজস্ব সার্ভিসের বিপুল উপাত্ত বিশ্লেষণ করা হচ্ছে। আসছে সপ্তাহগুলোতে এ নিয়ে আরও তথ্য প্রকাশ করা হবে।

তবে এসব তথ্য স্বাধীনভাবে যাচাই করে নিশ্চিত করতে পারেনি বিবিসি। এমন এক সময় এই তথ্য ফাঁস করা হয়েছে, যখন ধনীদের কর ফাঁকি নিয়ে দেশটিতে বিতর্ক চলছে।

প্রোপাবলিকা জানিয়েছে, মূলধারার অধিকাংশ মার্কিন শ্রমিকদের চেয়ে কম কর দিচ্ছে ২৫ আমেরিকান ধনী। কোনো ব্যক্তির সমন্বিত মোট আয়ের (এজিআই) ১৫ দশমিক আট শতাংশের হিসাবে এই কর নির্ধারণ করা হয়।

প্রোপাবলিকার জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ও সম্পাদক জেসি আইসেনগার বলেন, আপনি যদি মার্কিন ধনকুবের হন, তাহলে আপনার আয়কর শূন্যে নেমে যেতে পারে। এ অবস্থা দেখার পর আমরা তো কিছুটা অবাক। কোনো আয়কর না দেওয়ার অর্থ হচ্ছে, আমাদের মাটিতে নামিয়ে দেওয়া। অতি-ধনী ব্যক্তিরা বৈধভাবেই পুরো ব্যবস্থাকে পাশ কাটিয়ে যেতে পারে।

বিভিন্ন উপায়ে তারা এই ব্যবস্থার ফাঁক-ফোকর দিয়ে বেরিয়ে আসতে পারেন বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

ফোর্বসের তথ্য অনুযায়ী, জেফ বেজোসের সম্পদের পরিমাণ ১৮ হাজার ৮৮০ কোটি ডলার। ই–কমার্স জায়ান্ট প্রতিষ্ঠান আমাজনের ১০ দশমিক ৩ শতাংশ শেয়ারের মালিক বেজোস। যার পরিমাণ ১৭ হাজার কোটি ডলার। আমাজন ছাড়াও বেজোসের এক হাজার ৯০০ কোটি ডলারের সম্পদ রয়েছে।