ঢাকা, রবিবার, ১৬ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৩রা শাওয়াল, ১৪৪২ হিজরি, দুপুর ১২:১৫

করোনা নিয়ে নতুন করে উদ্বেগ বাড়ল ভারতের

ভারতে প্রতিদিনই বাড়তে থাকা করোনা পরিস্থিতির মধ্যে ডাবল মিউটেন্ট শনাক্তের পর উদ্বেগ বেড়েছে নতুন করে। দেশটির আশঙ্কাজনক পরিস্থিতির জন্য এই ডাবল মিউটেন্টই দায়ী কিনা তা নিয়েও আলোচনায় সরব নানা মহল। ভারতের এই ধরনটি বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় ইতোমধ্যেই ছড়িয়ে পড়তে থাকায় নড়ে চড়ে বসছেন বিজ্ঞানীরাও। আশঙ্কা করা হচ্ছে, ইউরোপে এরই মধ্যে এটি ছড়িয়েছে।

সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, ডাবল মিউটেন্ট করোনাভাইরাসের অন্য ধরনগুলোর চেয়ে অনেক বেশি হারে ছড়াচ্ছে কিনা এবং এটি প্রতিরোধে করোনার প্রচলিত টিকা আদৌ কাজ করছে কিনা তা পরীক্ষা করে দেখছেন বিজ্ঞানীরা। তবে এটুকু বলা হয়, এই ধরনটি অত্যন্ত ভয়াবহ, যা ভারতে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষের প্রাণহানি ঘটাচ্ছে।

বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, করোনার ডাবল মিউটেশন ছড়িয়ে পড়ার ক্ষমতা ৫০ শতাংশ বেশি ও এটি ৬০ শতাংশ বেশি মারাত্মক।

যুক্তরাষ্ট্রের একটি ভ্যারিয়েন্টের সঙ্গে মিল খুঁজে পাওয়ার কারণেই ভারতে করোনাভাইরাসের ডাবল মিউটেশন প্রথম নজরে আসে। সেই ভ্যারিয়েন্টটির নাম ছিল ক্যালিফোর্নিয়ান ভ্যারিয়েন্ট। দেশটিতে অনেক বেশি উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে যুক্তরাজ্যের কেন্ট ভ্যারিয়েন্ট। ভারত ছাড়াও আরও ৫০টি দেশে এই ধরনটি সবচেয়ে বেশি ধরা পড়ছে।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, অন্যান্য ভাইরাসের মতোই করোনাভাইরাসও খুব অল্প অল্প করে বদলাতে থাকে যাতে সহজে একজনের দেহ থেকে আরেকজনের দেহে গিয়ে সংক্রমিত হতে পারে। এ ধরনের মিউটেশন ঘটলে ভাইরাসের মধ্যে সংক্রমণ ঘটানোর ক্ষমতা বেড়ে যায়। তাই এ ধরনের ভাইরাসে মানুষ বেশি অসুস্থ হয়ে পড়ে আর এটি প্রতিরোধে টিকা আর কাজ করে না তা এখনও নিশ্চিত নয়। তাই এমন ধরনের অ্যান্টিবডি তৈরিতে জোর দিচ্ছেন বিজ্ঞানীরা, যার ফলে মানবদেহের কোষে ভাইরাস আর ঢুকতেই না পারে।

ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১