ঢাকা, রবিবার, ১৬ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৩রা শাওয়াল, ১৪৪২ হিজরি, সকাল ১১:০৩

‘আদালতের ভেতরের কথোপকথন প্রকাশ করতে পারে সংবাদমাধ্যম’

ভারতের সুপ্রিম কোর্টেও ধাক্কা খেল দেশটির নির্বাচন কমিশন। আদালতের ভেতরের সমস্ত কথোপকথন সংবাদমাধ্যমের প্রকাশ করার সম্পূর্ণ অধিকার রয়েছে বলে স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন শীর্ষ আদালত।

নির্বাচন কমিশনের ‘একটা মানসম্মান আছে’ এই যুক্তি তুলে ধরে তাদের বিরুদ্ধে করা বিচারপতিদের মৌখিক মন্তব্য ও পর্যবেক্ষণ যাতে সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ না হয়, তা নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন নির্বাচন কমিশনের আইনজীবী।

সোমবার (৩ মে) সেই মামলার শুনানিতে সুপ্রিম কোর্ট বলেছে, ‘সংবাদমাধ্যমকে কোনোভাবেই মৌখিক শুনানি প্রকাশ করা থেকে বিরত করা যাবে না। কারণ আদালতের ভেতরে কী ঘটছে, তা জানার কৌতূহল এবং অধিকার সাধারণ মানুষের রয়েছে। কোনও মামলার সর্বশেষ রায়ের পাশাপাশি আদালতের ভেতরের কথোপকথনও তারা জানতেই পারে।’

পাশাপাশি বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড় এটাও বলেন, ‘হাইকোর্ট বিচারবিভাগের গুরুত্বপূর্ণ স্তম্ভ। হাইকোর্টকে অবমাননা করা উচিত নয়। অনেক সময়ই এজলাসে বিচারপতিরা তাদের পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী নানা রকম মন্তব্য করে থাকেন। বিচারপতিদের সেই সমস্ত মন্তব্যের ওপরও লাগাম টানা অসম্ভব।’

এর আগে কোভিডের এই ভয়াবহ পরিস্থিতির জন্য নির্বাচন কমিশনকে এককভাবে দায়ী করে আক্রমণাত্মক মন্তব্য করেন মাদ্রাজ হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়।

কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউ ভয়ানক আকার ধারণ করার পরেও দেশের বিভিন্ন জায়গায় যখন স্বাস্থ্যবিধির তোয়াক্কা না করে মিছিল, রোড শো, জনসভা হচ্ছিল- তখন কমিশনের কর্তারা কোথায় ছিলেন? এই প্রশ্ন তুলে তাদের ‘দায়িত্বজ্ঞানহীন’ আচরণের জন্য কমিশনের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ‘মানুষ খুন’ এর মামলা করা উচিত বলেও মন্তব্য করেছিলেন মাদ্রাজ হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি। এর পরই সুপ্রিমকোর্টে গিয়েছিল কমিশন।

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১