শুক্রবার, ২৭শে নভেম্বর, ২০২০ ইং, ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ভোর ৫:২৩

বরিশাল নগরীতে ব্যাপ্টিশ মিশন রোডে সিটি কর্পোরেশনের সড়ক দখল করে বহুতল ভবন নির্মাণ

বরিশাল সিটি প্রতিবেদক :: বরিশাল শহরের ১১ নম্বর ওয়ার্ডের উইলিয়ামপাড়ায় সিটি কর্পোরেশনের রাস্তা দখল করে নির্মাণ করা হচ্ছে ভবন। স্থানীয় বাসিন্দা সুদাময় সিংহের তিন ছেলে তোতন, অদুদ এবং অমিত কয়েকদিন পূর্বে অনেটা গোপনে বহুতল ভবনের কাজ শুরু করছেন। এনিয়ে স্থানীয়দের মাঝে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। প্রতিবাদস্বরুপ ঐক্যবদ্ধ এলাকাবাসী বিষয়টি সিটি কর্পোরেশন মেয়রকে অবহিত করার পাশাপাশি প্রতিকার চেয়েছেন। অভিযোগ আছে, এই ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রে সিটি কর্পোরেশনের আইন মানা হয়নি।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উইলিয়াপাড়া সড়কের শেষ মাথার ভুমিতে বিগত সময়ে একই ভাবে ভবন নির্মাণ করার চেষ্টা করে সুদাময় সিংহের সন্তনেরা। তখন অবৈধভাবে ভবন নির্মাণ ও সড়কের জমি দখলের অভিযোগে সিটি কর্পোরেশন কাজ বন্ধ করে দেয়। এর পর দীর্ঘদিন ভবন নির্মাণ কাজ বন্ধ থাকলেও করোনা দুর্যোগের এই সময়ে কোনো প্রকার আইনি জটিলতা নেই ভেবে গোপনে কাজ শুরু করে।

স্থানীয় একাধিক বাসিন্দা জানিয়েছেন, উইলিয়াপাড়া সড়কের শেষ মাথায় সুদাময় সিংহের রেখে যাওয়া সম্পত্তিতে ভবন নির্মাণ শুরু করলে তার অনেকাংশ রাস্তার ওপর চলে আসে। এনিয়ে স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভ দেখা দিলে বিষয়টি তৎসময়ে সিটি কর্পোরেশনকে অবহিত করা হলে কর্তৃপক্ষ কাজ বন্ধ করে দেয়। এর পরে কৌশলে রাস্তার ওপরেই দেওয়ায় নির্মাণ করে। সেই বাউন্ডারীর অভ্যন্তরে এখন ভবণ নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। বিষয়টিতে এখন সিটি মেয়রের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।

স্থানীয় অপর এক বাসিন্দা জানিয়েছেন, সুদাময় সিংহের ছেলেরা বাসার পাশে একটি বিশাল গরুর খামার করে এলাকার পরিবেশ নষ্ট করছে। এনিয়েও এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভ আছে। এছাড়া এখন যে প্লানে ভবনটি নির্মাণ করা হচ্ছে, তাও মেয়াদোত্তীর্ণ। কাগজপত্র নবায়ন না করে তৎসময়ের প্লানে ভবন নির্মাণ কাজ শুরু করেছে।

অবৈধ ভবন নির্মাণের খবর পেয়ে সরেজমিন পরিদর্শন করেছেন ১১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মজিবর রহমান। তিনি বিষয়টি নিয়ে এলাকাবাসী ও সুদাময় সিংহের ছেলের সাথে শনিবার বিকেলে বসার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এদিকে এলাকাবাসী বিষয়টিতে মেয়রের হস্তক্ষেপ কামনা চাইছেন এবং গণস্বাক্ষর কর্মসূচি গ্রহণ করতে যাচ্ছেন।

এই বিষয়ে জানতে সুদাময় সিংহের ছেলে তোতনের মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তার ছোট ভাই রিসিভ করে বলেন, সিটি কর্পোরেশনের রাস্তার ওপর ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে না। বরং তারা বাউন্ডারী ওয়ালের অভ্যন্তরে ভবনের কাজ শুরু করেছেন। কিন্তু বিগত সময়ে এই বাউন্ডারী ওয়ালটি রাস্তার ওপর করা হয়েছিল এমন প্রশ্নের কোন উত্তর নেই তার কাছে। একই সাথে তিনি মেয়াদোত্তীর্ণ প্লানে ভবন নির্মাণ করার বিষয়টিও অস্বীকার করেছেন।

তবে সিটি কর্পোরেশনের রাস্তার ওপর বিগত সময়ে যে ভবন নির্মাণ হয়েছে তা ভেঙে ফেলে বলে জানিয়েছেন বিসিসির সড়ক পরিদর্শক আশিকুজ্জামান। তিনি জানান, বিষয়টি নিয়ে কেউ অভিযোগ করলে কর্মকর্তাদের নির্দেশনার আলোকে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।