বুধবার, ২০শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৬ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৩:৩৬

ইরানের নৌ-বাহিনীতে দেশটির ইতিহাসে সবচেয়ে বড় জাহাজ

ইরানের নৌবাহিনীতে যুক্ত হতে যাচ্ছে সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি এবং দেশটির ইতিহাসের সবচেয়ে বড় জাহাজ। সমুদ্র অভিযানে ইরানি নৌবাহিনীকে লজিস্টিক সাপোর্ট দিতে এ জাহাজ ব্যবহার করা হবে।

বুধবার (১৩ জানুয়ারি) মারকান নামের এই জাহাজটি আনুষ্ঠানিকভাবে ইরানি নৌবাহিনীতে যুক্ত হচ্ছে। জাহাজটিতে বহন করা হবে হেলিকপ্টারও। খবর পার্সটুডের।

জাহাজটি উদ্বোধন করা হয় ইরানের সামরিক বাহিনীর চিফ অব স্টাফের চেয়ারম্যান প্রধান মেজর জেনারেল মোহাম্মদ বাকেরি এবং সেনাবাহিনীর চিফ কমান্ডার মেজর জেনারেল আব্দুর রহিম মুসাভির উপস্থিতিতে।

দেশের সর্ববৃহৎ এ জাহাজটি ভারত মহাসাগরের উত্তরাঞ্চলে, এডেন উপসাগরের বাবুল মান্দেবে এবং লোহিত সাগরের মতো এলাকায় ইরানের সামরিক বাহিনীর অভিযানের সময় লজিস্টিক সাপোর্ট দেবে। এ ধরনের জাহাজকে ভ্রাম্যমাণ বন্দরও বলা হয়। যা ব্যবহার হয় সামুদ্রিক অভিযানে।

জাহাজটির ডেকে উঠানামা করতে পারবে হেলিকপ্টার, গানশিপ  এবং ড্রোন। এছাড়া, নৌবাহিনীর জন্য হোভারক্রাফট থেকে শুরু করে বিভিন্ন ধরনের নৌযান বহন করতে পারবে। এছাড়া জাহাজটি মিশন চালাতে পারবে উত্তাল সমুদ্রের মারাত্মক প্রতিকূল অবস্থার ভেতরেও।

ইরানি নৌবাহিনীতে যুক্ত করা হয় আরও একটি ক্ষেপণাস্ত্রবাহী ডেস্ট্রয়ার। এই জাহাজ যেমন দ্রুতগতিসম্পন্ন, তেমনি রয়েছে চমৎকার যুদ্ধ ক্ষমতা।